chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে পাকিস্তানে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের একটি নিরস্ত্র সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র পাকিস্তানে গিয়ে আঘাত হেনেছে। বুধবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যায় হরিয়ানার সিরসা থেকে ক্ষেপণাস্ত্রটি উড়ে এসে পাকিস্তানের ভূখণ্ডের ১২৪ কিলোমিটারের মধ্যে পড়েছে।

রুটিন রক্ষণাবেক্ষণের সময় যান্ত্রিক ত্রুটি হয়েছিল। তার জেরেই ভুলবশত ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ হয়ে গিয়েছিল। যা পাকিস্তানের ভূখণ্ড গিয়ে পড়েছে।

এমনই জানাল ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। সেই ঘটনার জন্য গভীরভাবে দুঃখপ্রকাশ করা হয়েছে এবং কোনো প্রাণহানি না হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে নয়াদিল্লি।

জানা গেছে, এটি ছিল চল্লিশ হাজার ফুট উচ্চতার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র। এতে ভারত-পাকিস্তান দুই দেশেরই যাত্রীবাহী ফ্লাইট, বেসামরিক নাগরিক ও সম্পদ ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছিল। এ নিয়ে উচ্চ-পর্যায়ের একটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে ভারতীয় সরকার।

পাকিস্তানের আইএসপিআরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল বাবর ইফতিখার বলেন, পাঞ্জাব প্রদেশের মিয়া চান্নুতে এসে ক্ষেপণাস্ত্রটি পড়েছে। এতে পাকিস্তানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করা হয়েছে।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্রটির আঘাতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। যেখানে সেটি পড়েছে সেখানে কোনো স্পর্শকাতর স্থাপনা নেই।

২০০৫ সালে সই হওয়া ভারত-পাকিস্তানের চুক্তি অনুসারে, দুই দেশই কোনো ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করতে চাইলে প্রতিবেশী দেশকে তা অন্তত তিন দিন আগে জানাতে হবে।

উৎক্ষেপণ স্থল দুই দেশের আন্তর্জাতিক সীমারেখার চল্লিশ কিলোমিটারের মধ্যে হতে পারবে না। আর পরীক্ষার কোনো প্রভাব যাতে ৭৫ কিলোমিটারের মধ্যে না পড়ে, তাও নিশ্চিত করতে হবে।

বাবর ইফতিখার বলেন, এ দুর্ঘটনা যে কারণেই ঘটুক না কেন, ভারতকে তার ব্যাখ্যা দিতে হবে। এভাবে গর্হিত আকাশসীমা লঙ্ঘনের ঘটনার নিন্দা জানাচ্ছে পাকিস্তান। ভবিষ্যতে এ রকম ঘটনা যাতে না ঘটে, সে জন্য সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হয়েছে।

পাকিস্তানের বিমান বাহিনীর মুখপাত্র তারিক জিয়া বলেন, ক্ষেপণাস্ত্রটির ধ্বংসাবশেষ পাওয়ার পর আমরা জানতে পারি, এটি সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র।

শুক্রবার (১১ মার্চ) সন্ধ্যায় ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘গত ৯ মার্চ রুটিন রক্ষণাবেক্ষণের সময় যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে ভুলবশত ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ হয়ে গিয়েছিল। বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করছে ভারত সরকার।

উচ্চপর্যায়ের কোর্ট অফ এনকোয়ারির নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাকিস্তানের একটি জায়গায় সেই ক্ষেপণাস্ত্র পড়েছে বলে জানা গেছে। এই ঘটনা গভীরভাবে দুঃখজনক হলেও বিষয়টি অত্যন্ত স্বস্তিদায়ক যে দুর্ঘটনার জন্য কোনো প্রাণহানি হয়নি।

চখ/আর এস

এই বিভাগের আরও খবর
Leave A Reply

Your email address will not be published.