chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

বছরজুড়ে আলোচনায় চসিক-সিডিএ’র কার্যক্রম

ফিরে দেখা -২০২১

ksrm

নিজস্ব প্রতিবেদক: মহাকালের পরিক্রমায় অস্ত গিয়েছে ২০২১ সালের সূর্য। নতুন বছর ঘিরে কত শত স্বপ্ন আর পরিকল্পনার ছক করতে বসেছেন নগরবাসীরা। যদিও গেল বছরটা চট্টলাবাসীর জন্য সুখকর ছিলনা।

নালা ও খালে পড়ে একাধিক মৃত্যু, করোনায় আইসিইউ সংকট, পরীর পাহাড় নিয়ে আইনজীবী ও জেলা প্রশাসকের মুখোমুখি অবস্থান,সিআরবিতে হাসপাতাল নিয়ে উত্তাল রাজনৈতিক অঙ্গন, রেললাইনে সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনা, চমেক ছাত্রলীগের নারকীয় সংঘর্ষ ও বহিস্কারের মধ্যে দিয়ে বছরটি অতিক্রম করেছে। যা নগরবাসীকে যেমন নাড়া দিয়েছে, তেমনি কর্তৃপক্ষকে প্রশ্নবানে জর্জরিত করেছে বারবার। বিদায়ী বছরের আলোচিত এসব ঘটনার সারাংশ নিয়ে ‘চট্টলার খবরে’র বিশেষ আয়োজন “ফিরে দেখা-২০২১”।

হাসপাতালে আইসিইউ হাহাকার:

ভারতীয় ডেল্টা ভারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ার পর সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য বিভাগকেও বেশ কয়েক মাস নাজুক পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে।বাড়তি রোগীর চাপে সরকারী ও বেসরকারি হাসপাতালকে হিমশিম খেতে হয়েছে।এর সঙ্গে দু দফা লকডাউনে হাসপাতালের আইসিইউ নিয়ে হাহাকার শুরু হয়।করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য বিভাগ ও চসিক একযোগে জরুরি ভিত্তিতে করোনা ভ্যাকসিনের কার্যক্রম শুরু করে।

বির্তকে ওয়াসা-সিডিএ:

গেল বছরটি ‘অপয়া’ ধরে নিয়ে ভুলে যেতেই চাইবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। অরক্ষিত খাল ও নালায় পড়ে একাধিক মৃত্যুর ঘটনায় রীতিমতো জনগণের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে এই দুটি সেবা সংস্থাকে। নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্পের কাজ করছে সিডিএ।

গত ৩০ জুন ষোলশহর দুই নম্বর গেইটের মেয়র গলিতে পাশের খালে নালায় পড়ে অটোরিকশা চালকসহ দুজন মারা যান।

এরপর দু মাসের মাথায় গত ২৫ আগস্ট মুরাদপুর মোড়ে চশমা খালে পড়ে নিখোঁজ হন সবজি বিক্রেতা সালেহ আহমেদ। এখনও তার খোঁজ মেলেনি।এ ঘটনার রেশ না কাটতেই মানুষখেকো উন্মুক্ত নালায় পড়ে ২৭ সেপ্টেম্বর মারা যান বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী সেহেরীন মাহমুদ সাদিয়া। তার মৃত্যুতে সংশ্লিষ্ট সেবা সংস্থাগুলোর কাজের সমন্বয়হীনতা স্পস্ট। সাদিয়ার ঘটনায় রাজনীতিক,পেশাজীবী সংগঠন থেকে শুরু করে সচেতন মহলকে নাড়া দেয়। সর্বশেষ ৬ ডিসেম্বর নালায় তলিয়ে গিয়ে ১২ বছরের শিশু মো. কামালের মৃত্যু হয়। এসব ঘটনায় পরস্পরকে দোষারোপ করে দায় সারতে চেয়েছে সেবা সংস্থাগুলো।চারদিকে আলোচনা-সমলোচনার মুখে বেকাদায় পড়ে যান চসিক মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

এসব ঘটনার গা না শুকাতেই গত ২৫ অক্টোবর রাতে নগরীর বহদ্দারহাট ফ্লাইওভারের একটি র‌্যাম্পে ফাটলের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে এ ঘটনার জন্য সিডিএকে দোষারোপ করে বক্তব্য দেয় মেয়র।পরে অবশ্য যাচাই-বাছাই শেষে র‌্যাম্পের ওই অংশে যান চলাচল খুলে দেওয়া হয়।

এমনকি সিডিএর করা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের শুরুর প্রান্ত লালখান বাজারের নকশা নিয়ে আপত্তি জানানো হয়েছিল চসিকের পক্ষ থেকে। চসিক ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পরও নিজেদের অবস্থানে অনড় থেকেছে সিডিএ।

পরীর পাহাড় নিয়ে মুখোমুখি আইনজীবী- জেলা প্রশাসন:

চট্টগ্রামের পরীর পাহাড়ের আধিপত্য নিয়ে জেলা প্রশাসন ও জেলা আইনজীবী সমিতি মুখোমুখি অবস্থান নেয়। ওই পাহাড়ে আদালত ভবন, জেলা আইনজীবী সমিতির বিভিন্ন স্থাপনা, বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয় রয়েছে। জেলা আইনজীবী সমিতি এক সংবাদ সম্মেলন থেকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানকে পরীর পাহাড় নিয়ে বক্তব্য প্রত্যাহারের আহ্বান জানান।অন্যতায় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিল। তবে মন্ত্রণালয় এক সিদ্ধান্তে পরীর পাহাড়ের অবৈধ স্থাপনা সারাতে সিডিএকে নির্দেশ দেয়।

সিআরবিতে হাসপাতাল:

চট্টগ্রামের ফুসফুস খ্যাত সিআরবি নিয়ে রীতিমতো ছেলে খেলা হয়েছে। এখানে একটি হাসপাতালে নির্মাণের খবর পেয়ে জোড়ালো আন্দোলনে নামে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।এই আন্দোলনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতারা সক্রিয়ভাবে অবস্থান নেয়। গণমাধ্যমে বক্তব্য দিয়ে প্রতিবাদে সরব থাকেন। তবে সময়ের পেক্ষাপটে অনেকে নিজেদের গুটিয়ে নেন।এরপরও আলোচনা সভা, ছড়া, কবিতা, গানে গানে সরব থাকে সিআরবি।এক পর্যায়ে চট্টগ্রামে এসে রেলমন্ত্রী সিআরবিতে হাসপাতালের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের অপেক্ষা কথা জানিয়েছিলেন। তখন সচেতন মহল ভেবেছিল সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ থেকে সরে আসবে রেলওয়ে। গত ২২ ডিসেম্বর রেলপত্র মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. আলী কবীর স্বাক্ষরিত চিঠিতে সিরআরিতে হাসপাতাল নির্মাণের বিষয়টি জানানো হয়।

আলোচনায় আদালত প্রাঙ্গণ:

করোনার মহামারীর মধ্যেও বছরজুড়ে আলোচনায় ছিল চট্টগ্রামের আদালত প্রাঙ্গণ। প্রায় ১৬ বছর আগে চট্টগ্রামের আদালত প্রাঙ্গণে আত্মঘাতী বোমা হামলায় জেএমবি বোমা বিশেষজ্ঞ বোমা মিজানকে মৃত্যুদণ্ড এবং অপর এক আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সন্তানদের ভরণ-পোষণের মিথ্যা আশ্বাসে একটি হত্যা মামলার অন্যের হয়ে জেল কাটা মিনু আক্তারকে কারামুক্তি দেয়। তবে কারামুক্তির ১৩ দিনের মাথায় মিনুর ট্রাকচাপায় মৃত্যু নতুন করে আলোচনা জন্ম দেয়।সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতু হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুই দফায় বদলি করা হয়েছে।
এমনকি গত ৬ মার্চ চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ফরহাদ হোসেন রুবেল নামে এক হাজতি পালিয়ে যাওয়ার পর কারাগারের অরক্ষিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। এ ঘটনায় কয়েকজন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল।

রেলক্রসিংয়ে মৃত্যু:

গত ৪ ডিসেম্বর সকালে নগরের খুলশী থানার ঝাউতলায় ডেমু ট্রেনের সঙ্গে বাস ও সিএনজি অটোরিকশার সংঘর্ষে ট্রাফিক পুলিশসহ তিন জন নিহত হন। এ ঘটনার একদিনের মাথায় কদমতলীতে ট্রেনের সঙ্গে সিএনজি অটোরিকশার ধাক্কা লাগে। গ্যাটম্যানের অবহেলায় এমন ঘটনা ঘটেছে বলে তদন্ত প্রতিবদেন উঠে আসে। এসব ঘটনার পর রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন ত্রুটি চোখে পড়ে।রেলওয়ের পুলিশের তথ্য মতে, বছরজুড়ের রেলওয়ের বিভিন্ন দুর্ঘটনায় পঙ্গুত্বের পাশাপাশি অনেককে প্রাণ হারাতে হয়েছে। এছাড়া প্রায় সময় রেলওয়ে রানিং স্টাফরা মাইলেজ কর্মসূচির জন্য রেলওয়ের কর্মকর্তাদের ব্যস্ত থাকতে হয়েছে।

হাড় নেই, চাপ দেবেন না:

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষের পর ছাত্রাবাস বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এর মধ্যে একটি পক্ষ সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও অন্যটি শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। সংঘর্ষের সময় শিক্ষার্থী মাহাদির ওপর নৃশংস হামলার ঘটনা ঘটে। হাসপাতালের বেডে তার ‘হাড় নেই, চাপ দেবেন না’ একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। জরুরি ভিত্তিতে তার অস্ত্রোপচার করান চিকিৎসকরা। এরপর নতুন করে চমেক কলেজের রাজনীতি বিষযটি আলোচনায় আসে। দুই গ্রুপের পক্ষ থেকে থানায় তিনটি মামলায় দায়ের হয়। এ ঘটনায় ৩১ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে বহিস্কার করে প্রশাসন। সূত্র জানায়, চমেকে একসাথে এত শিক্ষার্থী বহিষ্কারের ঘটনা এই প্রথম। এখানেই শেষ নয় সংঘর্ষের পর নিজেদের বলয় জিইয়ে রাখতে শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলের অনুসারী ইন্টার্ন চিকিৎসকদের একটি কমিটি আত্মপ্রকাশ করে।

মেয়রের আসনে রেজাউল:

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেনকে হারিয়ে গত ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। দায়িত্ব গহণের পর আগামী অর্থবছরের জন্য (২০২১-২২) ২ হাজার ৪৬৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করেন। তিনি আধুনিক নগর ভবন, স্মার্ট সিটি প্রকল্প, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য আবাসিক ভবন, নতুন সড়ক, টার্মিনাল নির্মাণসহ বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

ওয়াসার পানির দাম:

জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে না বাড়তেই নতুন করে আবাসিক ও বাণিজ্যিকে পানির দাম পাঁচ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় চট্টগ্রাম ওয়াসা। নতুন দর অনুযায়ী প্রতি ইউনিট (১ হাজার লিটার) পানির জন্য আবাসিক গ্রাহকদের ১৩ টাকা ২ পয়সা এবং অনাবাসিক গ্রাহকদের ৩১ টাকা ৮২ পয়সা গুনতে হবে। চলতি জানুয়ারি মাস থেকেই এই দাম কার্যকর হতে যাচ্ছে।

ভূমিকম্পের ঝুঁকিতে নগরীর অধিকাংশ ভবন:

বছরের শেষ দিকে বেশ কয়েকবার ভূমিকম্পন অনুভূত হওয়ার পর চট্টগ্রামের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের হালনাগাদের বিষয়টি সামনে আসে।সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে তথ্য না থাকায় জানা যায়নি ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের সংখ্যা। চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) সহযোগিতায় সর্বশেষ ১০ বছর আগে নগরের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা করা হয়েছিল। ফলে ঝুঁকি মাথায় নিয়ে এসব ভবনে বসবাস করে আসছে বাসিন্দারা।

সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন, নাগরিকদের স্বার্থে সেবা সংস্থাগুলো পরস্পরকে দোষারোপ না করে সমন্বয় করে কাজ করবে। একই সঙ্গে কাজের গুণহত মান যাচাইয়ে জবাবদিহীতার আওতায় আনার তাগিদ দিয়েছেন।

আরকে/জেএইচ/চখ

Loading...