chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

বছর শেষে পর্যটকশূন্য কক্সবাজার!

ksrm

চট্টলা ডেস্ক : সম্প্রতি কক্সবাজারে ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনাটি দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচিত হয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে এবার কক্সবাজার পর্যটন শিল্পে। সাড়ে চার শতাধিক হোটেল-মোটেল গেস্ট হাউসে অর্ধেকেরও বেশি কক্ষ ফাঁকা পড়ে রয়েছে।

থার্টি ফার্স্ট নাইট ও ইংরেজি নববর্ষ বরণে প্রতি বছর কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বিপুল পরিমাণ পর্যটকের সমাবেশ হলেও এবারের চিত্র ভিন্ন। গত বছর করোনা মহামারির কারণে সমুদ্রতীরে চলাচলে বিধি-নিষেধ থাকলেও এবার নেই কোনো নিষেধাজ্ঞা। তবুও যেন এক অজানা ভয় ঘিরে রয়েছে কক্সবাজার জুড়ে।

কক্সবাজার হোটেল ব্যবসায়ীরা বলছেন, প্রতি বছর এসময়ে কম হলেও লক্ষাধিক পর্যটক কক্সবাজার ভ্রমণে আসেন। কিন্তু এবারের অবস্থায় তারা হতাশ।

কক্সবাজার হোটেল মোটেল গেস্টহাউস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম সিকদার জানান, বাস্তবে কক্সবাজারে কিন্তু পর্যটকদের নিরাপত্তাজনিত কোনো সমস্যা নেই। সম্প্রতি যেটি ঘটেছে এটি বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা। আমরা এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি খাবারের দাম বেশি নেওয়া এবং ধর্ষণ এ দুটি ঘটনায় কক্সবাজারের বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে গেছে।

তবে কক্সবাজার টুরিস্ট পুলিশের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান বলেন, সাম্প্রতিক ঘটনার কিছুটা প্রভাব রয়েছে। তবে এ ধরনের ঘটনার যেন কোনোভাবেই আর পুণরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য টুরিস্ট পুলিশ সজাগ রয়েছে।
তিনি আরও বলেন, থার্টিফার্স্ট নাইটকে কেন্দ্র করে সমুদ্র সৈকত ছাড়াও আশপাশের যেসব পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে সেখানেও টুরিস্ট পুলিশের তৎপরতা আগের চেয়ে বাড়ানো হয়েছে।

সিশা/চখ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...