chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

কক্সবাজার জিয়া গেস্ট ইনের ম্যানেজার রিয়াজ রিমান্ডে

ksrm

বিভাগীয় খবর : কক্সবাজারে স্বামী-সন্তান জিম্মি করে নারী পর্যটককে ধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার জিয়া গেস্ট ইন হোটেলের ম্যানেজার রিয়াজুদ্দিন ছোটনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শনিবার বিকেলে জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে তোলা হলে বিচারক হামিমুন তাসনিম তাকে চার দিনের রিমান্ডে পাঠান।

এদিকে, ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত আশিক, বাবু ও জয়ের বিরুদ্ধে মামলাসহ নানা অপরাধের অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক রুহুল আমিন সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের এসপি জিল্লুর রহমান জানিয়েছেন, নারী পর্যটককে ধর্ষণের ঘটনার তদন্তের জন্য গ্রেফতার হোটেল ব্যবস্থাপক রিয়াজুদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন রয়েছে। ফলে আদালতের কাছে রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

পুলিশ জানায়, এ মামলার অন্যতম আসামি আশিকের নেতৃত্বে ওই গ্রুপটি প্রতি রাতে ঝাউবনে অপকর্ম চালাতো। আশিকের কব্জা থেকে রক্ষা করতে চা দোকানি ছেনোয়ারাকে অনুরোধ করেছিলেন ওই গৃহবধূ।

কিন্তু প্রাণের ভয়ে ছানোয়ারা সহযোগিতা করেননি। তবে, পুলিশ বলছে অপরাধী কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। আসামিদের ধরতে অভিযান চলছে।

সৈকত পোস্ট অফিস সংলগ্ন সড়কে চা বিক্রি করেন ছেনোয়ারা বেগম। বুধরাত রাতে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত আশিক ওই গৃহবধুকে নিয়ে আসেন তার দোকানে।

সেখানে তিনি দেখতে পান বাকবিতন্ডতায় জড়ানো গৃহবধূ ও আশিককে। একটু পর আশিক সরে গেলে চায়ের দোকানির কাছে সাহায্য চান ওই গৃহবধূ। কিন্তু ভয়ে সাহায্য করতে পারেননি।

ট্যুরিস্ট পুলিশ সুপার জিল্লুর রহমান জানান, আশিক কিছু দিন আগে জেল থেকে ছাড়া পায়। তার বিরুদ্ধে ১৬টির মতো বিভিন্ন অপরাধ সংগঠিত করার অভিযোগে মামলা রয়েছে। তাছাড়া আশিক, বাবু ও জয়ের বিরুদ্ধে মামলাসহ নানা অপরাধের অভিযোগ আছে।

অভিযুক্তদের আশ্রয়দাতা হিসেবে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির বিশেষ মুহুর্তের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার হয়েছে। তবে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির দাবি, তিনি দায়িত্ব নেয়ার পর অনেকেই তার সাথে ছবি তুলেছেন।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানিয়েছেন, অপরাধীদের যারা প্রশ্রয় দিয়েছেন তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।

এর আগে ২২ ডিসেম্বর রাতে শহরের লাবণী পয়েন্ট থেকে নারী পর্যটককে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ উঠে। খবর পেয়ে শহরের লাইট হাউস এলাকার জিয়া গেস্ট ইন নামের একটি হোটেল থেকে ওই পর্যটককে উদ্ধার করে র‌্যাব।

চখ/আর এস

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...