chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

লঞ্চে আগুন: নিহত বেড়ে ৩৯-তিন তদন্ত কমিটি

ksrm

জাতীয় ডেস্ক : ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে এমভি অভিযান-১০ নামে একটি লঞ্চে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যায় যোগ হয়েছে আরো ২ জন। মোট সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৯ জনে।

এর আগে সকাল থেকে ৩৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন আরও শতাধিক।

আহতদের বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আহতদের মধ্যে গুরুতর সাতজনকে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে পৃথক তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কতৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ) ও স্থানীয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এসব তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী বলেন, দাফন-কাফনের জন্য নিহত প্রত্যেক পরিবারকে প্রাথমিকভাবে ২৫ হাজার টাকা করে দিবে জেলা প্রশাসন। উদ্ধার করা মরদেহগুলো ঝালকাঠি সিটি মিনিপার্কে রাখা হয়েছে। সেখান থেকে মরদেহের পরিচয় নিশ্চিত করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, একটি লঞ্চে আগুন লেগে পুরো লঞ্চ ভস্মিভূত হবার পিছনে কোন রহস্য থাকতে পারে। নয়তো এমন ঘটনা আগে বাংলাদেশে ঘটেনি।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে একজন যুগ্মসচিবকে প্রধান করে ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নিহত প্রত্যেক পরিবারকে যাত্রী কল্যাণ সমিতির মাধ্যমে ১ লাখ ৫০ টাকা করে প্রদান করা হবে।

আগামী ৭ দিনের মধ্যে কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিলে সে অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া বিআইডব্লিউটিএ’র বন্দর ও পরিবহন বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে ছয় সদস্যের কমিটি করা হয়েছে।

অপরদিকে, ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক (ডিসি) জোহর আলী জানান, তাদের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নাজমুল আলমকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৩টায় ঝালকাঠি জেলার সদর উপজেলার ৮ নং গাবখান ধানসিঁড়ি ইউনিয়নের গাবখান চ্যানেলের আশেপাশে এই দুর্ঘটনা ঘটে। লঞ্চটিতে সকল বয়সের প্রায় ৫০০ জন যাত্রী ছিলেন বলে জানা গেছে।

চখ/আর এস

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...