chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

বয়সে ২১ মাসের ছাড় পাচ্ছেন চাকরিপ্রার্থীরা

ডেস্ক নিউজ: করোনাভাইরাস মহামারিতে লকডাউনের (বিধিনিষেধ) কারণে ক্ষতিগ্রস্ত সরকারি চাকরিপ্রার্থীদের বয়সে ছাড় দিতে যাচ্ছে সরকার। চাকরিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে কারো নির্ধারিত বয়স পেরিয়ে গেলে ক্ষতিগ্রস্তদের ২১ মাসের ছাড় দিতে এ সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে।

অনুমোদন পরে বয়স শিথিলের জন্য মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোকে নির্দেশনা দেবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়

গত বছরের ২৬ মার্চ থেকে দেশে টানা ৬৬ দিন সাধারণ ছুটি (লকডাউন) ছিল। মাঝে কিছুদিন বিরতি দিয়ে চলতি বছরের এপ্রিল থেকে আবারও শুরু হয়েছে বিধিনিষেধ (লকডাউন)। প্রায় দেড় বছর ধরে দেশে সরকারি চাকরির নিয়োগ কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও এর অধীনস্থ দফতরগুলোতে ৩ লাখ ৮০ হাজার ৯৫৫টি পদশূন্য রয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সরকারি চাকরির মোট অনুমোদিত পদ রয়েছে ১৮ লাখ ৮৫ হাজার ৮৬৮টি। এর মধ্যে কর্মরত রয়েছে ১৫ লাখ ৪ হাজার ৯১৩ জন। এর মধ্যে নারী ৪ লাখ ১৪ হাজার ৪১২ জন। শূন্য পদগুলোর মধ্যে প্রথম শ্রেণির পদ খালি ৪৬ হাজার ৬০৩টি, দ্বিতীয় শ্রেণির পদ রয়েছে ৩৯ হাজার ২৮, তৃতীয় শ্রেণির পদ রয়েছে ১ লাখ ৯৫ হাজার ৯০২ এবং চতুর্থ শ্রেণির পদ খালি রয়েছে ৯৯ হাজার ৪২২টি। এসব পদের বিপরীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেও করোনার কারণে পরীক্ষা নিতে পারছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ সময়ের মধ্যে অনেকের চাকরির বয়স ৩০ বছর পেরিয়ে গেছে। এ কারণেই ৩০ বছর পেরিয়ে যাওয়া প্রার্থীদের চাকরির আবেদনে ২১ মাসের সময় ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

বর্তমানে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ বছর, মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে ৩২ বছর। প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) মাধ্যমে নিয়োগ দেওয়া হয়। তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির পদগুলোতে নিয়োগের দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের। এ প্রসঙ্গে সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, করোনার কারণে চাকরিপ্রার্থীদের বয়সে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত খুবই ভালো উদ্যোগ। করোনাকালে সরকারি চাকরিতে নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। ফলে শিক্ষিত বেকাররা চাকরির জন্য আবেদন করতে পারেনি, অথচ অনেকের চাকরিতে আবেদনের বয়স শেষ হয়েছে। করোনার কারণে নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়সে ছাড় দেওয়া হলে চাকরিপ্রার্থীদের ক্ষতি অনেকটা পুষিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

 

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...