chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

গণটিকা কর্মসূচি সফল করতে সমন্বিত পদক্ষেপ জরুরি: সুজন

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামীকাল ৭ আগস্ট থেকে দেশব্যাপী সকল ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনে গণটিকা কর্মসূচির ঘোষণা করেছে সরকার। পরবর্তীতে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে জানানো হয় শুধুমাত্র ৭ আগস্ট একদিন টিকা দেওয়া হবে।

তারপর সাতদিন বন্ধ থাকার পর আবারো ১৪ আগস্ট থেকে গণটিকা কার্যক্রম শুরু হবে। এভাবে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে একেকবার একেক নির্দেশনার ফলে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

আজ শুক্রবার (৬ আগস্ট) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। তাছাড়া সরকারের গণটিকা কর্মসূচি সফল করতে সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণ একান্ত জরুরি বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, যেহেতু টিকাই হচ্ছে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে এ পর্যন্ত আবিষ্কৃত সর্বোত্তম মহাষৌধ। সেজন্য দ্রুততম সময়ের মধ্যে দেশের সকল জনগনকে টিকা প্রদানের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ রোধ করার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে সরকার।

সরকার বিভিন্ন উৎস থেকে টিকা সংগ্রহ করছে, টিকার মজুদ করছে। কিন্তু মাঠ পর্যায়ে সঠিক ব্যবস্থাপনা তৈরী করা না গেলে সরকারের সকল পরিকল্পনা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হবে। তাছাড়া দেশব্যাপী গণটিকা কর্মসূচী সফল করতে সমন্বিত ব্যবস্থাও একান্ত প্রয়োজন।

বিশেষ করে ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশন পর্যায়ে গণটিকা কর্মসূচী সফল করতে হলে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। টিকার মজুদ সাপেক্ষে এলাকাওয়ারী তালিকা প্রস্তুত করতে হবে। না হয় সবাই টিকা গ্রহণের জন্য টিকা কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে ভীড় করলে এর চাপ সামলানোও কঠিন হবে। আর এতে করে টিকা গ্রহণ করতে গিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও রয়ে যায়।

সুজন বলেন, সারাদেশে টিকার পর্যাপ্ত মজুদ যাচাই করে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ পূর্বক গণটিকা কর্মসূচী ঘোষণা করা হোক। প্রয়োজনে টিকা প্রদানে আরো কিছুদিন বিলম্ব হোক, তারপরও এসব বিষয়ে সম্পূর্ণ পরিকল্পনা গ্রহণ করেই যেন প্রকৃত তথ্য জনগনের কাছে উপস্থাপন করে।

বারবার ঘোষণার ফলে জনমনে বিভ্রান্তি হচ্ছে এবং সরকারের এতো বড়ো উদ্যোগ প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে বলেও মত প্রকাশ সুজনের।

তিনি টিকা সংগ্রহে সরকারের উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন, বিভিন্ন দেশ থেকে টিকা সংগ্রহের যে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে তা পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন করা গেলে সহসাই দেশের সকল মানুষকে টিকার আওতায় নিয়ে আসা যাবে।

তবে এর পাশাপাশি দেশে টিকা উৎপাদনের উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এতে করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সকল প্রকার শুভ উদ্যোগ সফলতায় পরিপূর্ণ হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন সুজন।

আরএস/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...