chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

হিরোশিমা দিবস আজ

ডেস্ক নিউজ: আজ ৬ আগষ্ট, হিরোশিমা দিবস। ৭৬ বছর আগে এ রকম একটা দিনে পরমাণু বোমায় কেঁপে উঠেছিল জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকি। ১৯৪৫ সালের এদিনে জাপানের হিরোশিমা শহরে পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথম পারমাণবিক বোমা হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। স্থানীয় সময় তখন সকাল ৮টা ১৫ মিনিট।

পৃথিবীর ইতিহাসে এটি একটি জঘন্যতম হামলা। এ হামলায় চোখের পলকে উল্লিখিত স্থান দুটি মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়। নিরীহ, ঘুমন্ত অসহায় শিশু-নারী-পুরুষ, বেসামরিক মানুষ হত্যা করা ছাড়াও কয়েক লাখ মানুষ চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করে।

মূলত এই হামলার মধ্য দিয়ে সমাপ্তি হয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের। তবে জাপানের আসাহি শিমবুনের এক হিসাবে বলা হয়েছে, বোমার প্রতিক্রিয়ায় সৃষ্ট রোগের কারণে দুই শহরে চার লাখের মতো মানুষ মারা যায়। এদের অধিকাংশই ছিলেন বেসামরিক নাগরিক।

আণবিক বোমা হামলার এতবছর পরও শহর দুটিতে জন্ম নিচ্ছে বিকলাঙ্গ শিশু। ক্যান্সারসহ দুরারোগ্য রোগে ভুগছে বহু মানুষ। হামলার সাত দশক পার হয়ে গেলেও ভয়াল সেই দিনের কথা এখনও ভোলেনি জাপানের মানুষ

হিরোশিমা দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানি রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি একটি বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিতে তিনি আণবিক বোমার শিকার অসংখ্য আত্মার প্রতি তার আন্তরিক সমবেদনা জানান। রাষ্ট্রদূত বলেন, ২০১৯ সালের অক্টোবরে যখন আমি বাংলাদেশে প্রথম এসেছি, তখন এটি জেনে আমি মুগ্ধ হই যে এত বেশি বাংলাদেশি হিরোশিমা এবং নাগাসাকির ট্র্যাজেডির বিষয়ে জানেন এবং শান্তির পক্ষে সোচ্চার হন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় পারমাণবিক বোমা হামলার ঘটনা, এমনকি সাসাকি সাদাকোর কাগজের সারসের গল্প এদেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠ্যপুস্তকে রয়েছে। এছাড়াও অনেক বাংলাদেশি কয়েক দশক ধরে ৬ আগস্ট হিরোশিমা এবং নাগাসাকির ট্র্যাজেডিকে ‘হিরোশিমা দিবস’ হিসাবে স্মরণ করে চলেছেন। বাংলাদেশ থেকে জাপানের প্রতি সেই মমত্ববোধ আমাদের কাছে অনেক অর্থবহ। আমি আশা করি, আমরা, জাপান এবং বাংলাদেশের জনগণ সবার জন্য এই বিশ্বকে আরও শান্তিময় ও সম্প্রীতির বিশ্ব করে গড়ে তোলার জন্য একসঙ্গে কাজ করে যাব।

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...