chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

হাটহাজারীতে সড়কের বেহাল দশা, স্থানীয়দের দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : দীর্ঘ দিন ধরে সংস্কারের অভাবে রাস্তায় সৃষ্ট একাধিক গর্ত আর কার্পেটিং উঠে খানাখন্দে ভরপুর চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ৮নং মেখল ইউনিয়ন পরিষদের ৬ ও ৯নং ওয়ার্ড সংলগ্ন রমেশ মহাজন সড়কটির বেহাল দশার সৃষ্টি হয়েছে। এতে সড়কটি দিয়ে চলাচলকারী যানবাহন ও এলাকাবাসীদের প্রতিনিয়ত চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

পাশ্ববর্তী সনাতন ধর্মালম্বীদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান পুন্ড্রিকধামে যাতায়াতের মাধ্যম এবং মেখল ইউনিয়নকে চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি মহাসড়কের সাথে সংযুক্ত করার ক্ষেত্রে এ সড়কের বেশ গুরুত্ব রয়েছে। অথচ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যথাযথ নজরদারির অভাবে সড়কটি দীর্ঘ দিন ধরে অযত্ন আর অবহেলায় পড়ে রয়েছে।
বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ১০ মিটার প্রস্থ এবং প্রায় ১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট সড়কটির ৭০ ভাগ অংশেই কার্পেটিং উঠে খোয়া বের হয়ে গিয়েছে। রাস্তায় সৃষ্ট বড় বড় গর্ত আর খানাখন্দের কারণে সড়কটি দিয়ে যানবাহনের পাশাপাশি পায়ে হেটে চলাচল করাও বেশ কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

রাস্তায় সৃষ্ট একাধিক গর্তে জমে থাকা পানিতে পায়ে হেটে চলাচলকারীদের পরিধেয় কাপড় চোপড় নষ্ট হচ্ছে প্রতিনিয়ত। ভাঙা ও খাসাখন্দকে ভরা সড়ক দিয়ে রিক্সা-ভ্যান, অটো-সিএনজি প্রতিনিয়ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। রাস্তার বেহাল দশায় গাড়ির ঝাঁকুনিতে সড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী অসুস্থ রোগী, প্রসূতি মা এবং বয়োবৃদ্ধদের কষ্টের সীমা থাকছে না।

সড়কটি দিয়ে যাতায়াতকারী ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রুবি চৌধুরী জানান, গত ৩-৪ বছর ধরে সংস্কারের অভাবে রাস্তায় সৃষ্ট গর্ত আর কাঁদায় রমেশ মহাজন সড়ক দিয়ে চলাচল করতে প্রতিনিয়ত নানা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এসময় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ৯ নং ওয়ার্ডের সড়কটির বেহাল দশা নিয়ে কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তা তাদের নজরে আসছে না।
অন্যদিকে সড়কটি দিয়ে নিয়মিত চলাচলকারী সিএনজি চালক রফিক জানান, সড়কে সৃষ্ট গর্তের কারণে প্রায় সময় তাদের গাড়ির বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নষ্ট হচ্ছে। এসময় তারা সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানান।

হাটহাজারী হাটহাজারী মেখল ৮নং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সালাউদ্দিন চৌধুরী জানান, সড়কটি সংস্কারের জন্য উপজেলা সহকারী প্রকৌশলীর সাথে আলোচনা চলছে।

এসএএস/নচ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...