chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

চট্টগ্রাম বন্দরে ফের কন্টেইনার জটের শঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক : কোরবানি ঈদের ছুরি শেষে কঠোর বিধি-নিষেধের ফলে চট্টগ্রাম বন্দর ইয়ার্ডে দ্রুত বাড়ছে কন্টেইনারের পরিমাণ।

গত ১৯ জুলাই চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনারের সংখ্যা ছিল ৩৭ হাজার ৮১৯। আর এই সংখ্যা আজ রবিবার (২৫ জুলাই) বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩ হাজারে।

বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, চট্টগ্রাম বন্দরে মোট ৪৯ হাজার ১৮টি কন্টেইনার রাখার জায়গা আছে।

বন্দর কর্মকর্তারা বলছেন, ঈদের ছুটি ও লকডাউনে পণ্য ডেলিভারি কমেছে। কিন্তু জাহাজ থেকে আমদানি পণ্যবাহী কন্টেইনার নিয়মিত নামছে ইয়ার্ডে। ফলে প্রতিনিয়তই বাড়ছে কন্টেইনারের পরিমাণ। এ পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে গত বছরের মতো আবারও বড় ধরনের কন্টেইনার জটের আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

তবে চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনার জট হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই উল্লেখ করে রবিবার (২৫ জুলাই) চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব মো. ওমর ফারুক বলেন, শনিবার থেকেই কন্টেইনার কন্টেইনার ডেলিভারি বাড়তে। এছাড়া চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতি মোকাবিলায় বন্দর দিয়ে আমদানি হওয়া কন্টেইনার অফডকে খালাসের অনুমতির কথা বলেছিল। জাতীয় রাজস্ববোর্ড থেকে চিঠি পেয়েছি, আমদানি করা কন্টেইনার অফডকে রাখা যাবে। ফলে বন্দরে চাপ কমবে। অফডকে কন্টেইনার নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

ঈদের ছুটি, লকডাউন ও শিল্প কারখানা বন্ধ থাকার কারণে কন্টেইনার বন্দর থেকে কম ডেলিভারি হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, বন্দরে জট এড়াতে দ্রুত পণ্য ডেলিভারি নেওয়ার জন্য শনিবার বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, চট্টগ্রাম চেম্বারসহ বন্দরের সাথে সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

চিঠিতে বলা হয়েছে, ঈদুল আজহার ছুটির সময় চট্টগ্রাম বন্দর ২৪ ঘণ্টা চালু রাখা হয়েছে। বন্দর সাত দিন ২৪ ঘণ্টা চালু থাকলেও কন্টেইনার বা পণ্য খালাসে আপনাদের কোনো উদ্যোগ পরিলক্ষিত হচ্ছে না, যা অত্যন্ত দুঃখজনক। এ অবস্থায় জরুরি ভিত্তিতে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে কন্টেইনার খালাস নিতে বিশেষভাবে অনুরোধ করা গেল। অন্যথায় বন্দর কর্তৃপক্ষ জমে থাকা কন্টেইনারের ওপর ‘দণ্ড ভাড়া’ আরোপের বিষয়টি বিবেচনা করতে পারে।

এসএএস/এএমএস/চখ

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...