chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

সরকার করোনাকালে বিপন্ন মানবতার পাশে আছে ও থাকবে: মেয়র

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, কঠোর লকডাউন চলাকালীন সময়ে নিম্ন আয়ের মানুষ নিদারুণ কষ্ট পাচ্ছে।

‘এই কষ্ট লাঘবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে কিছু ত্রাণ সামগ্রীসহ নগদ অর্থ বিপন্ন পরিবারগুলোর কাছে পৌঁছে দিয়ে জানান দিতে চাই এই সরকার জনবান্ধব।’

তিনি বলেন, জনগণের দুঃখ-কষ্ট লাঘবে সরকার নিত্য দিন ও সব সময় পাশে থাকবে। কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের ছোবলে সারা বিশ্বেই মুত্যৃর সংক্রমণের হারের ঊর্ধ্বগতির মধ্যেও এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি তুলনামূলক ভালো ও নিয়ন্ত্রণযোগ্য। তারপরও অবনতিশীল পরিস্থিতি মেকাবেলায় সরকার সামর্থ্যরে সকল শক্তি উজাড় করে দিতে প্রস্তুত।

রোববার (১১ জুলাই) নগরীর বাগমনিরাম ওয়ার্ড, পাহাড়তলী ওয়ার্ড ও চান্দগাঁও ওয়ার্ডে করোনায় বিপন্ন পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত নগদ অর্থ ও প্যাকেট জাত খাদ্য সামগ্রি বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, করোনা ছোবলে পর্যুদস্ত বাংলাদেশ প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়ালেও দ্বিতীয় ঢেউ আরও বড় বিপদ হয়ে ফনা তুলেছে। এতে আতঙ্কের কিছু নেই, সাহস না হারিয়ে আবার ঘুরে দাঁড়াবার শক্তি সঞ্চয় করতে পারলেই আমরা অবশ্যই বিজয়ী হবো।

তিনি নগরবাসীর উদ্দশ্যে বলেন, শুধুমাত্র সরকারি সাহায্য ও ত্রাণ দিয়ে শতভাগ নির্ভরতা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। তাই যার যা-যা সামর্থ্য ও সক্ষমতা রয়েছে তাও জনকল্যাণে উজার করে দিতে হবে। এই দায়িত্বটি বিত্তবান শ্রেণিকে অবশ্যই পালন করতে হবে। কেননা তাদের বিত্তের মধ্যেও গরিবের হক আছে। এই হক আদায় ও প্রদান ধর্মীয় ও মানবিক কর্তব্য।

মেয়র নগরবাসীর উদ্দেশ্যে আরো বলেন, চসিক একটি সেবামূলক স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। সেবার পরিধি বাড়াতে হলে অর্থের প্রয়োজন। তাই বলে নগরবাসীর উপর নতুন করে কর আরোপের প্রয়োজন পড়বে না। অথচ গৃহকর বাড়ানো হবে বলে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। বর্ধিত কোন গৃহকর ধার্য হবে না। তবে করের পরিধি বাড়ানো হবে।

তিনি নগরবাসীকে আশ্বস্ত করেন, চট্টগ্রামে বহুমাত্রিক উন্নয়ন কর্মকান্ড চলছে। তাই সাময়িক কিছু জনদুর্ভোগ হচ্ছে। এটা মেনে নিতে হবে।

পৃথক পৃথকভাবে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্যানেল মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী, মো. এসরারুল হক, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম, চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পপাদক সাইফুল আলম বাবু, আওয়ামী লীগ নেতা হাসান মনসুর, মাহফুজর রহামন মানিক, মো. আবুল হাশেম শাহ, মো. হায়দার আলী, সালাম জাগিরদার, মো. আবু বক্কর সিদ্দিক, মো. মহিউদ্দিন, দিদারুল আলম খোকন, মো. মনসুর প্রমুখ।

এসএএস/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর
Loading...