chattolarkhabor
চট্টলার খবর - খবরের সাথে সারাক্ষণ

অবিশ্বাস্য জয়, সুপার এইটে বাংলাদেশ

টি২০ বিশ্বকাপে অবিশ্বাস্য জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। মাত্র ১০৬ রান করেও নেপালকে হারিয়ে দিয়েছে টাইগাররা। আজ বিশ্বকাপের ম্যাচে নেপালকে মাত্র ৮৫ রানে অল আউট করে ২১ রানে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। আর এর মাধ্যমে তারা সুপার এইট নিশ্চিত করেছে।

স্বল্প রানেও জয় ছিনিয়ে আনতে বদ্ধপরিকর ছিল বাংলাদেশ। প্রথমেই তানজিম আঘাত হানেন। নতুন বলে তার আগুনে গোলায় তছনছ হয়ে গিয়েছিল নেপালি লাইনআপ। কল্পনা করা যায়, টি২০ ম্যাচে ২১টি ডট বল! আর মাত্র ৭ রান দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তিনটি উইকেট বাগিয়ে নেয়া!

আর এটাই অন্য বোলারদের উজ্জীবিত করেছে। তানজিমের পর মোস্তাফিজ আসেন। তাদের পর আসেন সাকিব আর রিশাদ। সঙ্কটজনক পর্যায়গুলোতে তারা উইকেট নিয়ে দলকে এই জয়ে সহায়তা করেন। শেষ দুটি উইকেট তো সাকিবই নিয়েছেন। আর মোস্তাফিজ নিয়েছেন তিনটি।

শেষ দুই ওভারে নাটকীয়তা চরম পর্যায়ে উপনীত হয়েছিল। নেপালের প্রয়োজন ছিল ১২ বলে ২২ রান। ১৯তম ওভারে দুর্দান্ত বোলিং করেন মোস্তাফিজুর রহমান। মেডেনসহ শিকার করে উইকেট। শেষ ওভারে নেপালের দুই ব্যাটারকে আউট করে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করেন সাকিব আল হাসান।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নেপালকে ২১ রানে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার এইট নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। ব্যাটার ব্যর্থতা ঢেকে যায় বোলারদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এই প্রথম এক আসরে ৩ ম্যাচ জয় পেল টাইগাররা। টস হেরে আগে ব্যাট করে ১৯.৩ ওভারে মাত্র ১০৬ রান করে বাংলাদেশ।

আমরা জানি আমরা পারব

রান আমরা বেশি করতে পারিনি। কিন্তু তবুও আমরা জানতাম, আমরা পারব। টি২০ বিশ্বকাপ ম্যাচে নেপালকে হারিয়ে এমন কথাই জানালেন বাংলাদেশের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

তিনি বলেন, আজ যেভাবে খেলেছি, তাতে আমরা খুবই খুশি। আমি আশা করি, আমরা আমাদের বোলিং পারফরমেন্স অব্যাহত রাখতে পারব। আর আশা করি, পরের রাউন্ডে আমাদের ব্যাটিং পারফরমেন্সও ভালো হবে। আমরা বেশি রান করতে পারিনি। তবে আমরা জানতাম, এই টোটাল আমরা ডিফেন্ড করতে পারব, যদি আমরা শুরুতেই উইকেট নিতে পারি।

শান্ত বলেন, আমরা আমাদের বোলারদের এ কথাই বলেছি। তারা মাঠেও খুবই ভালো পারফর্ম করেছে। আমাদের সবকিছুই ছিল। গত দুই তিন বছরে আমাদের ফাস্ট বোলাররা খুবই কঠোর পরিশ্রম করেছে।

তিনি বলেন, এই ফরম্যাটে বোলিং ইউনিট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি আশা করি তারা তাদের ফর্ম ধরে রাখতে পারবে।

তিনি বলেন, টি২০ ক্রিকেটে মোমেন্টাম খুবই সবসময়ই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের এখন দ্বিতীয় রাউন্ডের জন্য আমাদের পরিকল্পনা করতে হবে।

আর জয়ের নায়ক তানজিম হাসান সাকিবও আত্মবিশ্বাসের সাথে বলেন, আমাদের আত্মবিশ্বাস ছিল যে আমরা পারব। সবাই ভালো বল করেছে। আমরা ঠিক জায়গায় বলটি করতে পেরেছি।

তিনি বলেন, আমি স্রেফ আগ্রাসী হতে চেয়েছি, আমার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে চেয়েছি। আমরা এখন সুপার এইট নিয়ে উদ্দীপ্ত। আমরা আশা করি সুপার এএইটেও দারুণ কিছু করতে পারব।

উল্লেখ্য, টানা তিন ম্যাচ জয়ের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ সুপার এইট নিশ্চিত করেছে। এখন তাদের সামনে টার্গেট সেমিফাইনাল। সুপার এইটে বাংলাদেশকে দুটি পরিচিত দলের মুখোমুখি হতে হবে। এ দুটি হলো ভারত ও আফগানিস্তান। এছাড়া আছে অস্ট্রেলিয়া।

আর এই ম্যাচে হেরে নেপালকে বাড়ি ফিরতে হচ্ছে। তারা খারাপ খেলেনি। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলের কাছে তারা মাত্র ১ রানে হেরেছে। আর বাংলাদেশকে ১০৬ রানে আটকে ফেলাটা কম শক্তির পরিচয় নয়।

  • ফখ|চখ
এই বিভাগের আরও খবর